ঢাকা ০৪:৩৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনামঃ
Logo সেই প্রতারক উজ্জ্বলের খপ্পরে এবার শার্শার এক ব্যবসায়ী Logo তিন চাকার বাহন থামিয়ে দিচ্ছে সড়কের গতি Logo মৎস ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রীর পক্ষ থেকে বোয়ালমারীতে শীতবস্ত্র বিতরণ Logo ফরিদপুর-১ আসনে দুই স্বতন্ত্র প্রার্থী দোলন ও কৃকের মনোনয়নপত্র বাতিল Logo নারীদের অগ্রাধিকার ও ঘরে ঘরে চাকরী দেয়ার প্রতিস্রুতি দিলেন মহমুদা বেগম কৃক Logo সদরপুরে টেলিফোন গ্রাহকদের ভোগান্তি চরমে সংযোগ নেই দুই বৎসর Logo বাইশরশি পূজা মন্দিরে অনুষ্ঠিত হচ্ছে কাত্যায়নী পূজা, আজ বিসর্জ্জন Logo ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গাতে শ্রী শ্রী দামোদর আখড়া সর্বজনীন দুর্গা মন্দিরে পূজা অনুষ্ঠিত Logo চরবিষ্ণুপুর বারেক ফকিরের বাড়িতে বাৎসরিক উরশ শরীফ অনুষ্ঠিত Logo বোয়ালমারীতে যুবলীগের ৫১ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষীকি পালিত
প্রতিনিধি নিয়োগঃ
এটি একটি প্রিন্টভার্ষণ পত্রিকার ওয়েবসাইট। সারাদেশে জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ করা হবে। আগ্রহীদের শুধুমাত্র ইমেইলের মাধ্যমে যোগাযোগ করার জন্য বলা হইলো। -বার্তা সম্পাদক।

ফরিদপুর-১ আসনে দুই স্বতন্ত্র প্রার্থী দোলন ও কৃকের মনোনয়নপত্র বাতিল

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে ফরিদপুর-১ আসনে (বোয়ালমারী-মধুখালী-আলফাডাঙ্গা) দুইজনের মনোনয়ন পত্র বাতিল করা হয়েছে। এর আগে রবিবার (৩ ডিসেম্বর) সকাল ১০টায় ফরিদপুর-১ আসনে প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই কার্যক্রম শুরু হয়। ৭ প্রার্থীর মধ্যে স্বতন্ত্র দুই প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল ঘোষণা করেন জেলা প্রশাসক ও জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা কামরুল আহসান তালুকদার (পি.এ)।
ফরিদপুর জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, গত ৩০ ডিসেম্বর ফরিদপুর-১ আসনে (বোয়ালমারী-মধুখালী-আলফাডাঙ্গা) ৭জন সংসদ সদস্য প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। এর মধ্যে আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন দলের ৫জন এবং দুইজন স্বতন্ত্র প্রার্থী ছিলেন। রবিবার (৩ ডিসেম্বর) সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে প্রার্থীদের উপস্থিতিতে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই কার্যক্রম শুরু হয়।
এসময় হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকায় স্বতন্ত্র প্রার্থী কেন্দ্রীয় মহিলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা বেগম কৃকের হলফনামা বাতিল করা হয়। এছাড়া আরেক স্বতন্ত্র প্রার্থী সাংবাদিক আরিফুর রহমান দোলনের ফরমে মনোনীত প্রার্থীর ঘরে স্বাক্ষর না থাকায় তা বাতিল ঘোষণা করেন রিটার্নিং অফিসার।
এ আসনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আন্দোলনের (বিএনএম) প্রার্থী শাহ্ মোহাম্মদ আবু জাফরের মনোনয়ন পত্রে দুটি স্বাক্ষরে কিছুটা গরমিল থাকায় তা স্থগিত রাখা হয়। পরে পুনরায় স্বাক্ষর দিলে মনোনয়ন বৈধ বলে ঘোষণা করা হয়।

 

এ আসনে বৈধ প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম মেম্বার বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আব্দুর রহমান, জাতীয় পার্টির মো. আক্তারুজ্জামান, জাকের পার্টির মো. আ. রউফ মোল্যা ও বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির নুরুল ইসলাম শিকদার।
জানতে চাইলে আরিফুর রহমান দোলন তার প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বলেন, এটা আমার বিরুদ্ধে একটা ষড়যন্ত্র। এ আসনে যিনি আওয়ামী লীগের প্রার্থী তাকে সুবিধা পাইয়ে দিতেই আমার প্রার্থীতা বাতিল করা হয়েছে। আমি এর বিরুদ্ধে আপিল করবো। আমার বিশ্বাস আমি আমার প্রার্থীতা ফিরে পাব।
রবিবার যাচাই বাছাই শেষে ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক ও জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা কামরুল আহসান তালুকদার জানান, হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকায় স্বতন্ত্র প্রার্থী মাহমুদা বেগম কৃকের হলফনামা বাতিল করা হয়। এছাড়া অপর স্বতন্ত্র প্রার্থী আরিফুর রহমান দোলনের ফরমে মনোনীত প্রার্থীর ঘরে স্বাক্ষর না থাকায় তা বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে।
ট্যাগস :

সেই প্রতারক উজ্জ্বলের খপ্পরে এবার শার্শার এক ব্যবসায়ী

ফরিদপুর-১ আসনে দুই স্বতন্ত্র প্রার্থী দোলন ও কৃকের মনোনয়নপত্র বাতিল

আপডেট সময় ০৫:০৫:২১ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২৩
দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে ফরিদপুর-১ আসনে (বোয়ালমারী-মধুখালী-আলফাডাঙ্গা) দুইজনের মনোনয়ন পত্র বাতিল করা হয়েছে। এর আগে রবিবার (৩ ডিসেম্বর) সকাল ১০টায় ফরিদপুর-১ আসনে প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই কার্যক্রম শুরু হয়। ৭ প্রার্থীর মধ্যে স্বতন্ত্র দুই প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল ঘোষণা করেন জেলা প্রশাসক ও জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা কামরুল আহসান তালুকদার (পি.এ)।
ফরিদপুর জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, গত ৩০ ডিসেম্বর ফরিদপুর-১ আসনে (বোয়ালমারী-মধুখালী-আলফাডাঙ্গা) ৭জন সংসদ সদস্য প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। এর মধ্যে আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন দলের ৫জন এবং দুইজন স্বতন্ত্র প্রার্থী ছিলেন। রবিবার (৩ ডিসেম্বর) সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে প্রার্থীদের উপস্থিতিতে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই কার্যক্রম শুরু হয়।
এসময় হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকায় স্বতন্ত্র প্রার্থী কেন্দ্রীয় মহিলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা বেগম কৃকের হলফনামা বাতিল করা হয়। এছাড়া আরেক স্বতন্ত্র প্রার্থী সাংবাদিক আরিফুর রহমান দোলনের ফরমে মনোনীত প্রার্থীর ঘরে স্বাক্ষর না থাকায় তা বাতিল ঘোষণা করেন রিটার্নিং অফিসার।
এ আসনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আন্দোলনের (বিএনএম) প্রার্থী শাহ্ মোহাম্মদ আবু জাফরের মনোনয়ন পত্রে দুটি স্বাক্ষরে কিছুটা গরমিল থাকায় তা স্থগিত রাখা হয়। পরে পুনরায় স্বাক্ষর দিলে মনোনয়ন বৈধ বলে ঘোষণা করা হয়।

 

এ আসনে বৈধ প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম মেম্বার বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আব্দুর রহমান, জাতীয় পার্টির মো. আক্তারুজ্জামান, জাকের পার্টির মো. আ. রউফ মোল্যা ও বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির নুরুল ইসলাম শিকদার।
জানতে চাইলে আরিফুর রহমান দোলন তার প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বলেন, এটা আমার বিরুদ্ধে একটা ষড়যন্ত্র। এ আসনে যিনি আওয়ামী লীগের প্রার্থী তাকে সুবিধা পাইয়ে দিতেই আমার প্রার্থীতা বাতিল করা হয়েছে। আমি এর বিরুদ্ধে আপিল করবো। আমার বিশ্বাস আমি আমার প্রার্থীতা ফিরে পাব।
⇒ আরও পড়ুনঃ নারীদের অগ্রাধিকার ও ঘরে ঘরে চাকরী দেয়ার প্রতিস্রুতি দিলেন মহমুদা বেগম কৃক
রবিবার যাচাই বাছাই শেষে ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক ও জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা কামরুল আহসান তালুকদার জানান, হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকায় স্বতন্ত্র প্রার্থী মাহমুদা বেগম কৃকের হলফনামা বাতিল করা হয়। এছাড়া অপর স্বতন্ত্র প্রার্থী আরিফুর রহমান দোলনের ফরমে মনোনীত প্রার্থীর ঘরে স্বাক্ষর না থাকায় তা বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে।