শুক্রবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:৩৩ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
E-Paper-12.10.2021 E-Paper-15.08.2021 নড়াইলে কঠোর লকডাউন চলছে, আক্রান্তের হারও হু হু করে বাড়ছে থেমে নেই মৃত্যু কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্টের হেলিকপ্টারে গুলি: ‘জাকারবার্গ’কে খুঁজে দিতে পুরস্কার ঘোষণা! মাগুরার মহম্মদপুরে যুবকের বস্তাবন্ধি লাশ উদ্ধার। ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত শিশু কন্যার জীবন বাঁচাতে সাহায্য কামনা অনুষ্ঠিত হলো তথ্য কর্মকর্তাদের ভার্চুয়াল কর্মশালাঃ তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের কর্মীদেরকে সরকার ও জনগণের মধ্যে “সেতুবন্ধ” বললেন সচিব নগরকান্দায় বাস-ট্রাক মুখোমুখি সংঘর্ষ আহত -১৫ কুষ্টিয়ায় আলোচিত ইসলামী বক্তা মুফতি আমির হামজা আটক আলফাডাঙ্গায় আ’লীগ নেতার বাড়িতে হামলা গাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ

দুর্দৈবর শরৎ

-সৈকত রহমানঃ
(বন্ধু আবুল কাশেমকে)

তোমার শুয়ে থাকা মানে দিনগুলো কিছুতেই আর উঠে
চলতে পারছে না। তুমি কি শুনতে পাচ্ছ আধো -ঘুমন্ত,
ডান পায়ে তীব্র ব্যথায় কাত হয়ে। ওই দিন ওরকম দিন
না আসুক রাতের অন্ধকারে ত্রাসের পরিবহন-বাস, উনস্মাতাল
ড্রাইভার এই জবাবদিহিহীন সময়ের দেশে! আমাদের
অভিযোগগুলো গুলি খাওয়া বেওয়ারিশ লাশের মত পড়ে থাকে
শেষমেশ। উচ্ছলতার আমাদের আন্দময় নদীর বাঁকের
নক্ষত্র-খচিত রাতগুলো, চাঁদের হাসির রাতের
উজ্জলতাগুলো তোমাকে দেখতে এসেছে, তোমার
শাদা শান্ত শয্যার পাশে, (কে বা জানত ওই রাতগুলো
আমাদের কষ্ট দিতে ফিরে আসবে আবার)। তুমি খুব
দুঃখ পেয়ো না। তোমার শুয়ে থাকার সুদীর্ঘ বিশ্রাম মানে
শরতের দেবদারু গাছের প্রলম্বিত ছায়া।

মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ট্রমাসেন্টারের দীর্ঘ
সিঁড়ি বেয়ে বন্ধুদের কোনো যুদ্ধের পরাজয়ে অবনত মস্তকের সারি,
নিত্যদিন কত আহত যন্ত্রণাকাতর এদেশের পুরুষ-নারী শিশুর কান্না
আর কত আত্মীয়বর্গের হতবাক মুখোচ্ছবি। মনে হয় আরো কোনো
দুঃসময় এগিয়ে আসছে সন্তর্পণে। তবুও বিশ্বাসী প্রত্যয় ও
শুভ চেতনায় শরৎ আলোকে দেখি, ধূসর মেঘ ভেদ করা তোমার হাসিটুকু।

জানি জীবন আলেয়ার মত ভ্রান্ত আশ্বাসে অদ্ভুদ অন্ধকারে
আমাদের ভোগাবে। সে দুর্ভোগের প্রাদুর্ভাবে তোমার শুয়ে থাকা দেখি
অকারণ নয়, তারও কোনো গভীর অর্থ ধার্য আছে।

আমাদের বুক থেকে সেই চেপে রাখা ভার, কিছুতেই
আর নামছিল না। বুকের ভিতরের ভার, পোক্ত পাথরের মত,
অন্ধকার রাত্রির মত যাকে ছেদন করা যাচ্ছিল না।
এ এমন এক ভার যুৎসই নাম নেই যার।

তোমার শুয়ে থাকায় টনটন করে আমাদের বুক।
বাইরে, কাসার নতুন বাসনের রঙ শরতের রোদে।
তোমার হাস্যোজ্জল ছোট মেয়েটি খেলে বেড়ায় ট্রমাসেন্টারের
গভীর করিডোরে, বড় মেয়েটির বিশ্ববিদ্যালয় খুলবে কাল,
তোমার স্ত্রী-কে পড়াতে যেতে হয় বাচ্চাদের স্কুলে।
ইত্যাকার যত লাল-নীল-সবুজ সুতো পেচানো থাকে
আমাদের মনে। আমাদের মন, চঞ্চল ডানাওলা এক পাখি,
সে কিছুতেই ঘরে থাকবেনা। তোমার শুয়ে
থাকতেই হবে দীর্ঘ-কিছুদিন, ছুটি পাবার মত।

আমরা তো কতরকম আরগ্যের জন্য কষ্টকর প্রতীক্ষা করি।
কত আহত শত ব্যান্ডেজ ভার নিয়ে স্থির রক্তমাখা শুয়ে থাকা।
কিন্তু শরৎ নতুনত্বের আলোয় গড়িয়ে এসে নামে ওই
আকাশের খোলা প্রান্তে, একটা নীল বাসনায় ভালোবাসার তাঁবু
নিঃসঙ্গ মনে দিগন্তে খাটাতে থাকে সে।

Print Friendly, PDF & Email


     এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ